করোনাভাইরাসের জন্য পিছিয়ে গেল, ৪০তম বঙ্গ সম্মেলন, কিন্তু অনুষ্ঠানের কোন ব্যতিক্রম হচ্ছে না।

Ebangla Bureau

Image result for pictures of north america banga sammelan

দিলীপ চক্রবর্ত্তী – অন্যান্য বৎসরের মত সি এ বি এ বৎসরেও জুলাই মাসের ৩ থেকে ৫ তারিখে বঙ্গ সম্মেলন করবে ঠিক করেছিল, কিন্তু করোনাভাইরাসের মহামারীর জন্য কর্তৃপক্ষ সরকারী নিয়ম মেনে পিছিয়ে দিলেন। এখন ঠিক হয়েছে বঙ্গ সম্মেলন হবে আগামী সেপ্টেম্বরের ৪,৫, ও ৬ তারিখে। স্বভাবতঃই আহ্বায়ক মিলন আওন ও অন্যান্য কর্মীগণ কিছুটা হতাশ হয়েছেন, কিন্তু হাল ছেড়ে দেননি। বঙ্গ সম্মেলন হবেই, আর হবে রাতের লাস্যময়ী  স্বপ্ন নগরী লস ভেগাসের কোমল দেহ প্রাঙ্গনে। তার উপর বঙ্গ সম্মেলন আবার চল্লিশে প্রাজ্ঞ ও পরিপূর্ণ হয়ে দর্শকদের হাতছানি দিয়ে ডাকছে, এ আমন্ত্রণের আকর্ষণী শক্তি কম নয়, তাই ভ্রমরের মত সকল দর্শক লস ভেগাসের সুন্দর পরিপূর্ণ সম্মেলন উপভোগ করতে ছুটে আসছেন, দ্বিধা করবেন না, আপনিও আসুন, আর দেরী করবেন না। এ বছরকালচারাল এসোসিয়েসন অব বেঙ্গল ( সি এ বি) আবার পঞ্চাশ বছরে পদার্পন করেছে, আর এ বছর যে আমাদের সকলের প্রিয় বঙ্গ সংস্কৃতি সংঘের সুবর্ণজয়ন্তী, তাই যাঁকজমক বা উৎসবের কোন কার্প্যণ্য করা চলবে না। তাই ৪০তম বঙ্গ সম্মেলনের আহ্বায়ক শ্রী মিলন আওনের সাথে যোগ দিয়েছেন বঙ্গ সং স্কৃতি সংঘের বর্ত্তমান ও প্রাক্তন কর্মী ও স্বেচ্ছাসেববকগণ। সকলের মধ্যেই বিপুল উত্তেজনা ও উৎসাহ অতি প্রবল লক্ষ্য করা যাচ্ছে। বঙ্গ সম্মেলনের মূল্ভাবধারা ও এর প্রয়োগ বিধি প্রতি বৎসর উন্নত থেকে উন্নতর মানে উঠে যাচ্ছে। আর দর্শকগণ  বঙ্গ সম্মেলনে উপভোগ করা স্বপ্নময় দিনগুলির স্মৃতিনিয়ে প্রতি বৎসর গৃহে প্রত্যাবর্তন করেন। বঙ্গ সম্মেলনের সম্যক ও প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতা না হলে নিছক কল্পনা দিয়ে অনুভব করা যায় না। প্রতিটি আমেরিকাবাসী বাঙালির অন্ততঃ একবার এ সম্মেলনের অভিজ্ঞতা অর্জন করা উচিত। ২০২০ বঙ্গ সম্মেলনের মূল ভাবধারা হ’ল “হাতে হাত ধরে চলি”। মূল ভাবের সঙ্গে মিলে এ বছরের বঙ্গ সম্মেলনে দেখতে পাবেন এপার বাংলা ও ওপার বাংলার যৌথ প্রয়াসে পালন করা হবে তিন মহা মানবের জন্ম শত বার্ষিকী। এর মধ্যে দুজন হলেন পশ্চিমবঙ্গের সুরের যাদুকর শ্রী হেমন্ত মখোপাধ্যায়, বিশ্বজয়ী অনন্য সেতারশিল্পী শ্রী রবিশঙ্কর আর তৃতীয় মনিষী হলেন ওপার বাংলার দেশ প্রেমিক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। দুই বাংলার মিলনের এক অপূর্ব দৃষ্টান্ত, আর “হাতে হাত ধরে চলি”র অপূর্ব অঙ্গীকার, তথা এ সম্মেলনে আয়োজকদের হৃদয় মিলনে দুই বাংলার মানুষ এক হয়ে গেল, এপার বাংলা আর ওপার বাংলা বলে কিছু রইল না,  হয়ে গেল শুধু বাংলা। ৪০তম বঙ্গ সম্মেলনের কর্ণধার মিলন আওন, প্রবীর রায়, দিলীপ চক্রবর্ত্তী, চিত্ত সাহা, অভীক দাসগুপ্ত প্রণব দাস প্রমূখ ব্যক্তিগণের সম্মিলিত প্রচেস্টায় এ সম্মেলনের প্রতিটি বিভাগ, প্রতিটি আলোচ্য বিষয় অতি গভীর নৈপুণ্যের সাথে দর্শকদের কাছে পৌছে দেওয়া হবে মনে করা হচ্ছে। মনোরঞ্জনে সাহায্য করবেন দুই বাংলার কন্ঠশিল্পীগণ। কলা জগতের প্রতিষ্টিত উজ্জ্বল তারকাদের সমবেত সমাবেশে ওয়েস্ট গেট রিসরটের আকাশ আলোর বন্যায় ভাস্বর হয়ে উঠবে। এপারের প্রতিষ্ঠিত সুরের যাদুকর জিত গাঙ্গগুলি, পন্ডিত তন্ময় বসু, হরিহরনরা, যোগদেবেন ওপারের শামা রহমানদের সাথে। বলিউড থেকে দর্শকদের মনোরঞ্জন করতে আসছেন অন্যতম তরুণ তারকা মিকা সিং ও প্রতিষ্ঠিত উজ্জ্বল তারকা ওস্তাদ শ্রী রসিদ খান। ৪০তম বঙ্গ সম্মেলন ও সি এ বির গোল্ডেন জুবিলী উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের মূল চিন্তাধারা এবার একটু অন্য ধরনের হবে। এর সবটাই হবে আলোকরশ্মির সাহায্যে। পিছনে মোহময় যান্ত্রিক সংগীতের মাধ্যমে সম্মুখে আবির্ভুত হবেন দেবী গঙ্গা মহাদেব শিবের জটা থেকে। মাতা গঙ্গা গঙ্গোত্রী অতিক্রম করে মাতা বসুন্ধরাকে নিজের মহিমায় প্লাবিত করে পৃথিবীর বুকে সৃষ্টি করবেন সুখ ও সম্বৃদ্ধির ক্ষেত্র । আর একই সময়ে উজ্জ্বল আলোক রশ্মির সাহয্যে প্রতিফলিত হবে সি এ বির পূর্বসূরীদের যাঁরা নিজেদের কঠোর পরিশ্রমের সাহায্যে সি এ বি ও বঙ্গ সম্মেলনকে দর্শকদের মনোমধ্যে এক অতি উচ্চ আসনে প্রতিষ্ঠা করেছেন, জানানো হবে তাঁদের সকলকেই শ্রদ্ধা ও সম্মান, ছোট্ট একটি শিশু তার নিজের নৃত্যের মাধ্যমে এ বার্তা বহন করে নিয়ে আসবে সকল দর্শকের কাছে। উত্তর আমেরিকার ৩০টির ও বেশী সংগঠন ৪০তম বঙ্গ সম্মেলনে যোগদান করেছে দর্শকদের মনোরঞ্জন করতে। এ সংগঠংঠনগুলির প্রতিটি সদস্য নিজেদের নৃত্য ও সংঙ্গীত পরিবেশন করে নিজেদের প্রতিভার সাক্ষর রাখবে আপনাদের আনন্দ প্রদান করে। আপনাদের উৎসাহ ওদের ভবিষ্যতের পাথেয় হবে। বিজনেস সেমিনার আলোকিত করতে আসছেন আমেরিকার তিন বিখ্যাত বঙ্গতনয়। তাঁরা হলেন ডঃ মনি ভৌমিক, ডঃ পরিতোষ মোহন চক্রবত্তী ও ডাঃ কালীপ্রদীপ চৌধুরী। যাঁরা সারা পৃথিবীতে নিজেদের জ্ঞান ও অভিজ্ঞতার বার্ত্তা বহন করেন। ৪০তম বঙ্গ সম্মেলন এঁদের নিজের প্রাঙ্গনে পেয়ে অতি গর্ব অনুভব করবে। এ বছরের সাহিত্য সেমিনারে আলোচ্য বিভিন্ন বিষয় থাকবে, আর এ আলোচনায় অংশ গ্রহন করবেন আমেরিকায় বসবাসকারী প্রতিভাবান কৃতি সাহিত্যিক ও কবি, আর ওঁরাই ব্যাখ্যা করবেন  বাংলা সাহিত্যের বিবর্তনের ইতিহাস, প্রয়োজন ও ব্যাখ্যা। আর থাকবেন কলকাতার জনপ্রিয় কবি বীথি চট্টোপধ্যায় এবং দেশে বিদেশে সম্মানপ্রাপ্ত বিশিষ্ট লেখক কবি ও প্রবন্ধকার ডঃ বিধান দত্ত। উত্তর আমেরিকার কবি লেখদের প্রতি অনুরোধ আপনি যদি আপনার কবিতা বা গল্পাংশ এ সাহিত্য সভায় পড়তে চান, তাহলে ইমেলে আপনার নাম নথীভুক্ত করুন। Email – dcha42@aol.com or rumkibua@yahoo.com or rudrasankar8@gmail.com.

শোনা যাচ্ছে, ৪০তম বঙ্গ সম্মেলনে এ বছর গলফ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হচ্ছে। প্রসঙ্গতঃ জানাই ওয়েস্ট গেট রিসর্টের তিন তলায় সুন্দর টেনিস কোর্ট আছে। এ সংবাদ প্রতিবেদকের টেনিস খেলার অভ্যাস আছে। আপনার র‍্যাকেট আনতে ভুলবেন না। খেলার পার্টনারের ব্যবস্থার দায়িত্ব এ প্রতিবেদকের। শোনা যাচ্ছে এ বৎসর আরেকটি বৃহৎ পদক্ষেপ নিচ্ছেন বঙ্গ সম্মেলনের আয়োজকবৃন্দ। আমেরিকায় বাঙালির ঐতিয্য রক্ষার্থে  শুরু হবে “বেঙ্গলী হল অব ফেম”।বাঙালি ভোজনরসিক জাতি। প্রতি বৎসর মধ্যাহ্ন বা রাতের ভোজনে নানা রকম সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। ৪০তম বঙ্গ সম্মেলনে কতৃপক্ষ এক অভিনব ব্যবস্থা করেছেন। ওয়েস্ট গেটেই রান্নার ব্যবস্থা হয়েছে আর দায়িত্বে রয়েছেন ওয়েস্ট গেটের প্রধান Chef. মেনুর অন্যতম আকর্ষন হচ্ছে বাঙালির অতি প্রিয় “সর্ষে ইলিশ”। প্রিয় দর্শকগণ – হজমের ওষুধ আনতে ভুলবেন না যেন। পরিশেষে জানাই – সি এ বি’র গোল্ডেন জুবিলীর ধামাকা ও ৪০তম বঙ্গ সম্মেলন উৎসবে যোগ দিতে ভুলবেন না। এ বঙ্গ সম্মেলন উপভোগ করে আপনি যারপর নাই খুশি হবেন।

                          “বঙ্গ সম্মেলন যুগ যুগ জিও”  

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *