ধর্ম অবমাননা ২০২২: ফিরে দেখা 

শিতাংশু গুহ, নিউইয়র্ক।।

২০২২-এ ধর্ম-অবমাননার ক’টি ঘটনা ফিরে দেখা যাক। ২৫শে ‘ডিসেম্বর ২০২২, অর্থাৎ বড়দিন-র খুব সকালে রাজশাহী মহানগরের ‘উত্তম মেষপালক ক্যাথিড্রাল গীর্জায়’ লাল কাপড়ে মোড়ানো একটি কোরান রেখে কেউ পালিয়ে যায়। একজন সেবিকা তা দেখে সন্দেহ হলে পুলিশে খবর দেয়, ডিবি পুলিশ এসে কোরান উদ্ধার করে এবং একজন গোলাম চৌধুরীকে গ্রেফতার করে। পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক জানান, গোলাম চৌধুরী একজন সুস্থ ও স্বাভাবিক মানুষ। তবে তিনি নিজেকে ‘ঈসা-নবী’ হিসেবে দাবি করেছেন। (একাত্তর/এসি)।

৪ঠা অক্টবর ২০২২ ডেইলি ষ্টার পত্রিকায় জাইমা ইসলাম লিখছেন, এ বছর একদিকে হিন্দুদের ২২টি ধর্মস্থান আক্রান্ত হয়েছে, অন্যদিকে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের অন্তত: ৭জনকে ‘ধর্ম অবমাননার’ অভিযোগে ডিজিটাল সিকিউরিটি এক্টে গ্রেফতার বা মামলা করা হয়েছে। তিনি শ্রীমঙ্গলের প্রীতম দাশের কথা বলেছেন, মুন্সিগঞ্জের শিক্ষক হৃদয় মন্ডল এবং নড়াইলের শিক্ষক স্বপন কুমার বিশ্বাসের প্রসঙ্গ টেনেছেন। এপ্রিলে কৌশিক বিশ্বাস’২০ ধর্ম অবমাননার অভিযোগে গ্রেফতার ও বাগেরহাট মোরেলগঞ্জে এক হিন্দুর বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেয়া এবং নড়াইলের দিঘলিয়া সাহাপাড়া এক কিশোরের ফেইসবুক পোষ্টের কারণে বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেয়া ও পিতা-পুত্রকে গ্রেফতারের কথা বলেছেন। ঝুমন দাসের প্রসঙ্গ ছিলো। সাতক্ষীরার আশাশুনি গ্রামের মিহির মন্ডল সেপ্টেম্বরে ভীত হয়ে নিজেই পুলিশে কাছে ধরা দিয়েছেন। ২০১৬-তে নাসিরনগর ধ্বংসযজ্ঞের পর ৬টি কেইস ফাইল হয়েছিলো, কোন ফাইল নড়ছে না, শুধু নিরক্ষর জেলে রসরাজ যিনি ফেইসবুক চালাতে পারেন না, তাঁর বিরুদ্ধে ফেইসবুকে ‘ধর্ম অবমাননার’ চার্জশিট দেয়া হয়েছে। রামু ঘটনা ১০ বছর পেরিয়ে গেছে, বিচার হচ্ছেনা।    

সময় নিউজ ৯ই সেপ্টেম্বর ২০২২ জানায়, ফেইসবুকে ধর্মীয় উস্কানি দেয়ায় মৌলভীবাজার শ্রীমঙ্গল পৌরশহর থেকে প্রীতম দাস নামে এক যুবককে ‘ধর্ম অবমাননার’ অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনা নিশ্চিত করেছে। বিআইএইচসি জানিয়েছে, চাঁদপুরের শাহরাস্তির বলশীদ হাজি ইয়াকুব আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক অখিল দেবনাথকে ধর্ম অবমাননার অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে। জুলাই’র ৬ তারিখ ঠাকুরগাঁও উপজেলার শিবগঞ্জ বাজারে নবী মুহাম্মদ কে কটুক্তি করার অভিযোগে সাধারণ জনগণ নির্মল রায় ৪০-কে ধরে উত্তম-মধ্যম দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। ২৯ জুন ২০২২ রাশেদ খান মেনন লিখেন, শিক্ষককে তো জুতার মালা পরানো কিংবা মেরে ফেলাই যায়! অন্যদিকে শিক্ষক উৎপলের হত্যাকারীকে গ্রেপ্তার দাবিতে আমরণ অনশনে ঢাবির পাঁচ ছাত্র। 

এপ্রিলে মিডিয়া হেডিং করে, ‘শিক্ষক জেলে, পরিবার আতঙ্কে’। স্ত্রী’র অভিযোগ, তাঁর শিক্ষক স্বামী ষড়যন্ত্রের শিকার। ডেইলি ষ্টার ১২ই এপ্রিল ২০২২ প্রশ্ন তুলে, ‘হৃদয় মন্ডল কি আসলেই ধর্ম অবমাননা করেছেন’? একই সময়ে সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার ভাদেশ্বর নাছির উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ম অবমাননার অভিযোগ আসার পর তিনি আত্মগোপনে চলে গেছেন। মিরেরসরাইয়ে হিজাব পরায় মারধরের ভুয়া কাহিনী সাজিয়ে হিন্দু প্রধান শিক্ষককে হেনস্তা করা হয়, এবং স্কুল ম্যানেজিং কমিটি তাঁকে চাকুরী থেকে অব্যাহতি দেয়। নওগাঁর সহকারী প্রধান শিক্ষক আমোদিনী পাল ‘হিজাব বিদ্বেষ’ অভিযোগ থেকে বেঁচে গেছেন, যদিও হেনস্তা কম হননি। এপ্রিল মাসে ভোরের কাগজ হেডিং করেছে, ‘হিজাব অবমাননার দায় থেকে মুক্ত আমোদিনী পাল’। এপ্রিল ২০২২, এ বেশ ক’টি ঘটনা ঘটে, মিডিয়া জানায়, বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে ইসলাম ধর্ম ও নবীজি হযরত মোহাম্মদ (সঃ)কে কটুক্তি ও অবমাননা করে ফেসবুকে পোস্ট দেওয়ার অভিযোগে কৌশিক বিশ্বাস (২৩) নামের এক যুবককে আটক করেছে পুলিশ। ১১ এপ্রিল রাতে মোরেলগঞ্জ উপজেলার নিশানবাড়িয়া ইউনিয়নের আমরবুনিয়া গ্রাম থেকে কৌশিককে আটক করা হয়। ঢাকা টাইমস ২০শে এপ্রিল জানায়, ফেনীতে ছাত্রীর বোরকা নিয়ে কটূক্তি, শিক্ষক পরিমল বরখাস্ত। প্রথম আলো ২৪শে এপ্রিল জানায়, ধর্ম নিয়ে কটূক্তি করায় বরিশালে আদালত ‘বাপন দাস-কে’ ৮ বছরের কারাদন্ড দিয়েছে। বাউফল পটুয়াখালীতে মন্দিরে কোরআন রেখে পালানোর সময় এক ব্যক্তি আটক হয়েছে। 

মার্চ ২০২২-তে ফেইসবুকে ধর্মানুভুতিতে আঘাত পোষ্ট নিয়ে খুলনায় উত্তেজনা, এক ব্যক্তি গ্রেফতার। ২২শে মার্চ ক্লাশে ইসলাম ধর্ম ও নবীকে অবমাননার অভিযোগে শিক্ষক আটক হয়েছেন। ২৫শে মার্চ ২০২২ হরিপুর, হোগলপাশা, মোড়েলগঞ্জ, বাগেরহাটে হিন্দুদের বাড়িঘর জ্বলিয়ে দেয়া হয়েছে, নেতৃত্ব দিয়েছেন চেয়ারম্যান ফরিদুল ইসলাম। হতভাগ্য ভিকটিমের নাম দীপক কুমার মাঝি। তুষার মজুমদার নামে অপর একজনকে গ্রেফতার করা হয় কোরান অবমাননার অভিযোগে। ঢাকনিউজ২৪ডটকম হেডিং করেছে, ‘কপালে টিপ্ পড়ায় শিক্ষিকার গায়ে বাইক তুলে দিলো পুলিশ’। তেজগাঁও কলেজের শিক্ষিকা লতা’র ঘটনা পুরো দেশে আলোড়ন তুলে, তিনি বেঁচে গেছেন। ঢাকার সরকারি কলেজের শিক্ষিকা রুমা সরকার রক্ষা পাননি, পুলিশ তাঁকে মধ্যরাতে ঘর থেকে তুলে নিয়ে যায়, ক’দিন জেল খাটেন, এখন মুক্ত, তবে তাঁর বিরুদ্ধে চার্জ গঠনের প্রক্রিয়া চলছে। বছরের শুরুতে জানুয়ারি ২০২২-এ জানা যায়, কালীগঞ্জ, লালমনিরহাট তালুক শক্তি হাইস্কুলের শিক্ষক পবিত্র রায়কে ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনে গ্রেফতার করা হয়েছে।  

২০২৩-র সবে শুরু, ৩রা জানুয়ারি সিলেটে ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনে ধর্ম অবমাননার দায়ে রাকেশ রায়-কে ৭বছর কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত, সাথে ১লক্ষ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরো এক বছর বিনাশ্রম কারাদন্ড। বরিশাল লঞ্চঘাটে ঘোষ মিষ্টান্ন ভাণ্ডারে খেয়ে পয়সা না দিয়ে দাঁড়িতে টান দিয়ে ইসলাম অবমাননার অভিযোগ এনে দোকান ভাংচুর, লুটপাট হয়েছে, পুলিশ দোকানিকে থানায় আটক করেছে। পাইওনিয়ার ডেন্টাল কলেজে হিন্দু শিক্ষার্থীদের খাঁসির বিরানী বলে গরুর বিরানী খাওয়ানো হয়েছে। ‘রুমি’ নামে এক শিক্ষক শিক্ষার্থীদের ইচ্ছাকৃতভাবে মিথ্যা বলেছেন। শিক্ষার্থীরা ফুঁসে উঠলে রুমি স্যার পদত্যাগ করেছেন বলে রটানো হয়, যদিও ৫ই জানুয়ারি ২০২৩ দেখা যায় তিনি স্বপদে বহাল। ডিজিটাল সিকিউরিটি আইন এখানে অচল, যদিও হিন্দুদের বিরুদ্ধে এই আইনটি বেশ সচল। ইতিমধ্যে বেশ কিছু হিন্দু যুবক-যুবতী’র এতে সাঁজা হয়েছে, আরো হবে, কারণ এই আইনটি হিন্দুদের বিরুদ্ধে ‘ব্ল্যাসফেমি’ হিসাবে ব্যবহৃত হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.