ডালহৌসি অঞ্চলকে উন্নত করতে,সেখানকার ঐতিহ্য এবং অনন্য স্ট্রিট ফুড এর সংস্কৃতি কে সংরক্ষণের জন্য এক্সাইড ইন্ডাস্ট্রিজ এবং দ্য বেঙ্গল চেম্বার “”আপিস পাড়ার খাবার” নামে যৌথভাবে একটি উদ্যোগ নিয়েছে।


Ebangla Bureau


কলকাতার ডালহৌসি সর্বদাই বাণিজ্যিক অঞ্চল বা আপিস পাড়া হিসাবে সুপরিচিত। অন্তত আজ থেকে এক দশক আগেও সবাই অফিস পাড়া বললে এক কথায় এই জায়গাই বুঝতেন। কিন্তু বর্তমানে কলকাতা শহরের সীমানা বাড়ছে এবং শহরের সীমাবদ্ধতা আরও প্রসারিত হচ্ছে। অনেক অফিস এখন  সল্টলেক এবং রাজারহাট অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে।  তবুও ডালহৌসিকে এখনও প্রধান বাণিজ্যিক অঞ্চল হিসাবে বিবেচনা করা হয়।  এই ঐতিহাসিক  ও ঐতিহ্যবাহী অঞ্চলের সংরক্ষণ, প্রচার ও আরও বিকাশের প্রয়াসে বেঙ্গল চেম্বার অ্যান্ড এক্সাইড ইন্ডাস্ট্রিজ আপিস পাড়ার খাবার নামে একটি নতুন ও অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে,
যার আনুষ্ঠানিক সূচনা হয়েছে  2020 সালের 27 শে জানুয়ারী থেকে।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত  দ্য বেঙ্গল চেম্বার এর  মিডিয়া, মিউজিক এবং ফিল্মস কমিটির চেয়ারম্যান মিঃ অরিন্দম শিল বলেন, “খাদ্য একটি অঞ্চলের সংস্কৃতির সমার্থক এবং ডালহৌসি অঞ্চলটি কেবল আমাদের ঐতিহ্যের সাথেই জড়িত ছিল না, এর একটি বিরাট খাদ্য সংস্কৃতি বিদ্যমান রয়েছে।  অনেক অফিস যাত্রী এবং পর্যটকদের জন্য এটি  আক্ষরিক অর্থেই একটি লাইফলাইন । তাই আমরা ভেবেছিলাম  এমন একটা  উদ্যোগ নেওয়া যেতে পারে যাতে এই অঞ্চলের খাদ্য, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি কে কিভাবে সংরক্ষন করা যায়। আমরা আমাদের রাস্তার বিক্রেতাদের যারা এই জায়গাকে রান্নার বা খাদ্য প্রস্তুতের মাধ্যমে  জীবিত রেখে চলেছে তাদের   সহায়তা করার জন্য  এগিয়ে এসেছি।  পরিচ্ছন্নতা, অগ্নি নিরাপত্তা, পরিবেশ, খাদ্য সুরক্ষা, স্বাস্থ্য, স্বাস্থ্যকরতা,  দক্ষতা, ব্র্যান্ডিং, বিপণন দক্ষতা, উদ্যোক্তা এবং নারীর ক্ষমতায়ন সম্পর্কিত কর্মশালার আয়োজন করেছি যা এই স্থান কে  আরও ভালভাবে সংরক্ষণে সহায়তা করবে।”“আমরা বেঙ্গল চেম্বারের এই অনন্য প্রয়াসে সিএসআর উদ্যোগের অংশ হিসাবে  এগিয়ে এসেছি যেখানে ১৫০ জন বিক্রেতাকে নিয়ে চারটি  কর্মশালারআয়োজন  করা হয়েছে।  চূড়ান্ত কর্মশালা ১১ ই ফেব্রুয়ারি, যেখানে ১০টি স্টল রাখা হবে, যা ২২ শে ফেব্রুয়ারি লিয়ন্স রেঞ্জ – স্টক এক্সচেঞ্জের রাস্তা থেকে বেঙ্গল চেম্বারে যাওয়ার রাস্তায় একটি গালা স্ট্রিট ফুড ফেস্টিভ্যালের যে আয়োজন করা হবে তার মাধ্যমে পরিপূর্ণতা পাবে,” জানান দ্য বেঙ্গল চেম্বার এর সিএসআর কমিটির চেয়ারম্যান  শ্রী জিতেন্দ্র কুমার  সিং। দ্য বেঙ্গল চেম্বারের  ডিরেক্টর জেনারেল শ্রী শুভদীপ  ঘোষ জানান, “আমাদের চিন্তাভাবনা ছিল যে যাদের হাতে এত সুস্বাদু খাবার প্রস্তুত হচ্ছে, এই অফিস পাড়ায়ে, তাদের সুরক্ষা, তাদের ঐতিহ্য কে সংরক্ষন করার জন্য আমরা কি কি পদক্ষেপ নিতে পারি। আর আমরা এও ভেবেছি যে এদের কে আরও আধুনিক, ও উন্নত, সময়োপযোগী করে তোলা গেলে এই শহরের টুরিজিম ব্যবস্থাও আরও উন্নত ও অগ্রসর হবে। এছাড়া আমরা সবাই জানি অফিস পাড়ার খাবার এর এক  সূপ্রাচীন ঐতিহ্য আছে, সেই ঐতিহ্য কে বজায় রেখে এবং আধুনিকতা কে সঙ্গী করে, কি কি ভাবে স্ট্রিট ফুড বিক্রেতাদের আরও উন্নতি সাধন করা যায় এবং একই সাথে আমাদের প্রিয় এই শহর কে সবুজ আর পরিচ্ছন্ন রাখা যায়, তার জন্যই আমাদের এই ওয়ার্কশপ গুলির আয়োজন করা”। সিএসআর উদ্যোগে আমাদের সাথে আছে নাথিং বিয়ন্ড  সিনেমা, সিস্টার নিবেদিতা বিশ্ববিদ্যালয়, হোটেল এন্ড রেস্তোরাঁ অ্যাসোসিয়েশন, জাতীয় রেস্তোরাঁ অ্যাসোসিয়েশন-কোলকাতা, রেডিও মিরচি, এস এন্ড আই বি, ৬ বালিগঞ্জ প্লেস এবং সেকেন্ড ইনিংস স্পোর্টস এন্ড এন্টারটেনমেন্ট প্রমু

Leave a Reply

Your email address will not be published.