করোনা ভাইরাসের কারণে অর্থনৈতিক মন্দা শুরু হলে ট্রাম্পের প্রেসিডেন্সি শেষ হয়ে যাবে?

Image

শিতাংশু গুহ, ১৮ই মার্চ ২০২০, নিউইয়র্ক।। ডেমক্রেটরা আশা করছেন, করোনা ভাইরাসের কারণে অর্থনৈতিক মন্দা শুরু হলে ট্রাম্পের প্রেসিডেন্সি শেষ হয়ে যাবে। সেইলক্ষে তাঁরা এখন জো বাইডেনের পিছনে ঐক্যবদ্ধ হচ্ছেন। বার্নি স্যান্ডার্সকে পরামর্শ দেয়া হচ্ছে বাইডেনকে সমর্থন দিয়ে প্রেসিডেন্ট রেস্ থেকে সরে দাঁড়াতে। মঙ্গলবার ১৭ই মার্চ তিনটি ষ্টেটে প্রাইমারিতে বাইডেন জয়ী হয়েছেন। স্যান্ডার্স ক্যাম্পেইন পুরো বিষয়টি নুতন করে পর্যালোচনা করছেন। মঙ্গলবার, ১৭ই মার্চ ২০২০ ৪টি ষ্টেটে প্রাইমারি হওয়ার কথা ছিলো, ৩টিতে হয়েছে, ওহাইও-তে হয়নি, কারণ গভর্নর এক্সিকিটিভ নির্দেশ দিয়ে বন্ধ করেছেন। এরআগে আদালত করোনার জন্যে প্রাইমারি হবার পক্ষে নির্দেশ দিয়েছিলো। ফ্লোরিডা, ইলিনয়েস, আরিজোনায় নির্বাচন হয়েছে। জো বাইডেন তিনটিতে জয়ী হয়েছেন। এই জয় তাকে আরো সুবিধাজনক অবস্থানে পৌঁছে দিয়েছে। পূর্ববর্তী নির্বাচনে স্যান্ডার্স ক্যালিফোনিয়া জিতেছেন। বাইডেন জিতেছেন ওয়াশিংটন।  বাইডেন তার নির্বাচনী ক্যাম্পেইন ঢেলে সাজাচ্ছেন, লক্ষ্য নভেম্বরে ট্রাম্পকে হারানো। তিনি ওবামা’র ক্যাম্পেইন কর্মকর্তা জেন ও’মেইলি ডিলন-কে নিয়োগ দিয়েছেন। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প করোনার জন্যে জরুরি অবস্থা জারি করে ২০০৯-এ ‘সোয়াইন ফ্লু’ নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থতার জন্যে ওবামা এবং বিশেষ করে জো বাইডেনের বিরুদ্ধে বিষোদ্গার করেছেন। জর্জিয়া ২৪ মার্চ অনুষ্ঠেয় প্রাইমারি স্থগিত করেছে, পরবর্তী দিন স্থির করেছে ১৯ মে ২০২০।  বাইডেন সিক্রেট সার্ভিস প্রটেকশন পেতে শুরু করেছেন। তুলসী গ্যাবার্ড এখনো প্রেসিডেন্টনসিয়াল রেসে আছেন। ট্রাম্প প্রশাসন করানোর কারণে ট্রাভেল ব্যান বাড়িয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও আয়ারল্যান্ডকে অন্তর্ভুক্ত করেছেন। বুধবার ১৮মার্চ ২০২০ বাইডেনের ডেলিগেট সংখ্যা ছিলো ১১৮০, স্যান্ডার্সের ৮৮৫, ব্যবধান প্রায় ৩০০। স্যান্ডার্স কি এই ব্যবধান কমাতে পারবেন? দলীয় মনোনয়ন পেতে ১৯৯১টি ডেলিগেট প্রয়োজন।  পারবেন? দলীয় মনোনয়ন পেতে ১৯৯১টি ডেলিগেট প্রয়োজন।  

বাইডেন-স্যান্ডার্স প্রথম সরাসরি বিতর্ক হয়েছে রোববার, ১৫ মার্চ ২০২০, বাইডেন ভাল করেছেন। করোনার কারণে বিতর্ক ফিনিস্কের পরিবর্তে ওয়াশিংটনে হয়েছে। দর্শক ছিলোনা। বাইডেন বলেছেন, তিনি একজন মহিলাকে তাঁর রানিংমেট করবেন। স্যান্ডার্স ততটা জোর দেননি, বলেছেন, তিনিও হয়তো তাই করবেন। বিতর্ক শুরু হয় করোনা নিয়ে, সোশ্যাল সিকিউরিটি, মেডিকেয়ার, সবই আসে। বাইডেন চেষ্টা করেছেন, বামদের কাছে টানতে, যা ২০১৬-তে হিলারি পারেননি।  বাইডেন বলেছেন, জিতলে তিনি প্রথম তিন মাসে কাউকে ডিপোর্ট করবেন না! তবে বাইডেনের একটি কথার উত্তর দিতে ট্রাম্প দেরি করেননি। বাইডেন বলেছেন, প্রেসিডেন্ট হয়তো সোশ্যাল সিকিউরিটি ও মেডিকেয়ারে কাটছাট করতে পারেন। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এক টুইটে এর উত্তরে বলেছেন, বাইডেন মিথ্যাবাদী, আমি নই, বরং বাইডেন জিতলে সোশ্যাল সিকিউরিটি ও মেডিকেয়ারে কাটছাট করবেন। বাইডেন বলেছেন তিনি একজন মহিলা রানিংমেট নেবেন, কে তিনি? এই তালিকায় ক্যালিফোর্নিয়ার সিনেটর কমলা হ্যারিস, মিনেসোটার সিনেটর এমি ক্লোবুচার; অপেক্ষাকৃত কম পরিচিত মিশিগান গভর্নর গ্রেটচেন হুইটমার; সিনেটর এলিজাবেথ ওয়ারেন প্রথম সারিতে আছেন। তারপর আছেন উদীয়মান ডেমক্রেট স্টেসি আব্রাহাম; নেভাদার সিনেটর ক্যাথরিন কর্টেজ ম্যাস্টো; রোড-আইল্যান্ডের গভর্নর জিনা রাইমান্ডো; নিউ-মেস্কিকোর গভর্নর মিশেল লুজান গ্রিশাম; ইলিনয়েসের সিনেটর টামি ডাকওয়ার্থ; উইসকনসিনের টামি বোল্ডউইন; নিউইয়র্কের সিনেটর ক্রিস্টিন জিলিব্র্যান্ড এবং ফ্লোরিডার কংগ্রেসওমেন ভ্যাল ডেমিংস। সামাজিক মাধ্যমে আরো একটি থিওরি আছে যে, বাইডেন রানিংমেট হিসাবে হিলারি ক্লিন্টনকে নেবেন, যাতে তিনি সহজে ট্রাম্পকে হারাতে পারেন। জয়ী হলে হিলারি ভাইস-প্রেসিডেন্ট হবেন। বাইডেন ৭৮, তবে বয়সের কারণে ন্যূজ। হয়তো তিনি মারা যাবেন, বা স্বাস্থ্যগত কারণে পদত্যাগ করবেন। হিলারি হবেন প্রেসিডেন্ট? আমার ধারণা, বাইডেন এ ভুল করবেন না। কেউ কেউ তার রানিংমেট হিসাবে ওবামা পত্নী মিশেলের নাম আনছেন, বোধকরি সেটিও হচ্ছেনা। বাইডেনের নমিনেশন চূড়ান্ত হলে, সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা তার জন্যে মাঠে নামবেন।(courtesy to Fox Business Insider for the picture above )

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *