ডেমোক্রেট সম্মেলন শেষ, রিপাবলিকানদের শুরু

নিউইয়র্ক।। ডেমক্রেট ন্যাশনাল কনভেনশন (ডিএনসি) শেষ হয়েছে। সাবেক ভাইস-প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং ক্যালিফর্নিয়ার সিনেটর কমলা হ্যারিস দলের টিকিটে প্রেসিডেন্টশিয়াল নির্বাচন করবেন। ১৭ই আগষ্ট থেকে ২০শে আগষ্ট ২০২০, টানা চারদিন এই সম্মেলন নিয়ে আমেরিকা ব্যস্ত ছিলো। সম্মেলন হয় মিলওয়াকি-তে, যদিও সেটি ছিলো ফাঁকা। কারণ কোভিড-১৯। এবারকার কনভেনশন তাই ছিলো ‘একটি বিশালাকায় ঝুম মিটিং’। এই প্রথম, এটি ইতিহাস, এরআগে কখনো এমনটি ঘটেনি। রিপাবলিকান সম্মেলন সোমবার, ২৪শে আগষ্ট শুরু। ঝুম কনফারেন্স, তবে কিছু মানুষ সশরীরে উপস্থিত থাকবেন। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প-মাইক পেন্স দলীয় মনোনয়ন গ্রহণ করবেন। নির্বাচন মঙ্গলবার ৩রা নভেম্বর, প্রতিদ্বন্ধিতা হবে ট্রাম্প-পেন্স ভার্সেস বাইডেন-হ্যারিস। কে জিতবেন? 

বৃহস্পতিবার ডিএনসি’র শেষদিনে ডেমোক্রেটিক প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বাইডেন দলীয় মনোনয়ন গ্রহণ ভাষণে বলেছেন, যদি তিনি ট্রাম্পকে হারাতে পারেন, তবে বিভক্ত ও থমকে যাওয়া আমেরিকাকে আবার নুতন রাস্তা দেখবেন। তাঁর জীবনের শ্রেষ্টতম সময়ে বহু প্রতীক্ষিত এ ভাষণ তিনি দেন তার হোমটাউন উইলমিংটন, ডেলোআর থেকে। সিনেটর ভাইস-প্রেসিডেন্ট প্রার্থী কমলা হ্যারিস তাঁর কালো ও ভারতীয় ঐতিহ্যের কথা স্মরণ করে বলেন,  এই নির্বাচনের মাধ্যমে ইতিহাসের গতি পরিবর্তনের সুযোগ এসেছে। বাইডেনকে জেতাতে এই সুযোগ কাজে লাগাতে হবে। ডেমোক্রেট কনভেনশনে চাকচিক্য ছিলোনা। অনেকটা তৃতীয় বিশ্বের সম্মেলনের মত? নিউইয়র্কের উঠতি কংগ্রেসওমেন আলেকজান্দ্রিয়া ওকসিও কর্টেজ (এওসি) বলেছেন, আমাদের আরো ভালো করা উচিত ছিলো। রিপাবলিকানরা বলেছেন, আমরা দেখাবো সম্মেলন কাকে বলে? 

উদ্বোধনী দিবসে সাবেক ফার্ষ্ট লেডি মিশেল ওবামা বলেছেন, কেউ প্রেসিডেন্ট হলেই মানুষটি বদলে যায়না, বরং মানুষটি’র আসল রূপ প্রকাশ পায়। তিনি বলেন, ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট হওয়া আমেরিকার জন্যে ভুল ছিলো। এবার সেই ভুল শুধরাতে হবে। মিশেলের বক্তব্য ভালোই ছিলো। তবে ট্রাম্প সমালোচনা করে বলেছেন, মিশেল ওবামা তাঁর দীর্ঘ ভাষণে একবারও কমলা হ্যারিস’র নাম নেননি, তাহলে বুঝুন কেমন এদের ঐক্য? এরপরে মিশেল তাঁর ভুল শুধরে ইনস্টাগ্রামে কমলা হ্যারিসের ভূয়সী প্রশংসা করেন। সাবেক প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বলেছেন, ট্রাম্প প্রেসিডেন্সিকে রিয়েলিটি শো মনে করেন। ওবামা বলেন, ট্রাম্পের প্রেসিডেন্সি ভুল, তার জন্যে করোনায় ১লক্ষ ৭০হাজার মানুষ মারা গেছে। তিনি এ কাজের উপযুক্ত নন? ওবামা তাঁর ভাইস-প্রেসিডেন্ট বাইডেন ও কমলা হ্যারিস-কে বন্ধু হিসাবে বর্ণনা করে তাদের প্রশংসা করেন।

সাবেক প্রেসিডেন্ট বিল ক্লিন্টন এবং হিলারী ক্লিন্টন সম্মেলনে ভাষণ দিয়েছেন। সম্মেলনে এওসি-কে সময় দেয়া হয়েছিলো ১মিনিট। তিনি রেগে এক টুইটে বলেছেন, ‘আমি সময়টা কাজে লাগাবো’। তাই করেছেন, ৯৬ সেকেন্ডের ভাষণে ভারমন্টের সিনেটর বার্নি স্যান্ডার্সকে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার আহবান জানিয়েছেন। পরে আবার এক টুইটে বাইডেনের প্রতি সমর্থন ঘোষণা করেছেন। নিউইয়র্কের গভর্নর এন্ড্রু ক্যুমো করোনায় এত মৃত্যু’র জন্যে ট্রাম্পের অযোগ্যতাকে দায়ী করেছেন। ট্রাম্প বলেছেন, রেডিক্যাল ওয়েষ্ট ক্ষমতায় আসতে চায়। তাঁরা আমেরিকাকে অবধৈ, অপরাধী, নৈরাজ্য সৃষ্টিকারীদের অভয়ারণ্য বানাতে চায়। কমলা হ্যারিসের জন্ম নিয়ে যে বিতর্ক উঠেছিলো, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেছেন, ‘উই ডোন্ট কেয়ার, মাথা ঘামাই না। সাধারণত: সম্মেলনের সময় দলীয় প্রার্থীর সমর্থন বাড়ে। অথচ, সিএনএন জানাচ্ছে, ডেমক্রেট সম্মেলনের সময় ট্রাম্পের জনপ্রিয়তা বেড়েছে, যদিও জরিপে তিনি বাইডেন থেকে পিছিয়ে। 

শনিবার ট্রাম্প টুইট করেছেন যে, ডেমোক্রেটরা তাদের সম্মেলনে গড (ঈশ্বর)-কে বাদ দিয়ে দিয়েছে। তিনি লিখেছেন, প্রথমে ভেবেছিলাম, ওঁরা হয়তো ভুল করেছে, পরে বুঝলাম, ওটা ইচ্ছাকৃত! তিনি ইভাঞ্জেলিক খৃষ্টানদের একথা স্মরণ করিয়ে বলেছেন, ভোট ৩রা নভেম্বর। তার পুত্র এরিক ট্রাম্প ‘আন্ডার গড’ উচ্চারণ না করায় সতর্কতা উচ্চারণ করেছেন। খৃষ্টান ব্রডকাস্ট নেটওয়ার্ক এই নিউজ দেয়, যদিও কোন মেইনষ্ট্রীম মিডিয়ায় এটি আসেনি।  মুসলিম ডেলিগেট এন্ড এলাইজ এন্ড এলজিবিটিকিউ ককাসের সময় এ ঘটনা ঘটে। বাইডেন বলেছেন, ক্ষমতায় গেলে তিনি ভিসা-গ্রীনকার্ড সহজ করবেন। কমলা হ্যারিস তাঁর প্রেস সেক্রেটারি হিসাবে ভারতীয় আমেরিকান সাবরিনা সিং-কে নিয়োগ দিয়েছেন। এই প্রথম কোন ভারতীয় কোন মার্কিন ভাইস-প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থীর প্রেস-সেক্রেটারি হলেন। 

ডিএনসি ইমিগ্রেশন প্রশ্নে একটি বালিকাকে দিয়ে যে ভাষণ ও বিজ্ঞাপন দিয়েছে, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। এস্টেলা জারিস, ১১ তাঁর মা-র কাহিনী বর্ণনা করে বলেন, আমরা একজন প্রেসিডেন্ট চাই, যিনি পরিবারকে একত্রিত করবেন। উল্লেখ্য, তাঁর মা আলেজান্দ্রো জারিস ১৯৯৮সালে অবৈধভাবে মেস্কিকো দিয়ে আমেরিকা ঢুকেন। সেটি ক্লিন্টন যুগ, তাকে ডিপোর্ট করা হয়। আবার তিনি অবৈধভাবে আমেরিকা ঢুকেন, আইন অনুযায়ী এবার তিনি ফৌজদারি অপরাধ করেছেন। ২০১৩ সালে তিনি একটি ট্রাফিক ভায়োলেশনে ধরা পড়েন, জেলে যান এবং ডিপোর্টেশনের রায় হয়। ২০১৮ সালে ট্রাম্প আমলে তাঁকে ডিপোর্ট করা হয়। পুরো ঘটনা প্রবাহ ডেমক্রেট আমলে, কিন্তু সকল দোষ বর্তাচ্ছে ট্রাম্পের ওপর?   এদিকে সোমবার রিপাবলিকান সম্মেলন শুরুর দিনে প্রায় দুই ডজন প্রাক্তন রিপাবলিকান সিনেট ও কংগ্রেস সদস্য জো বাইডেনের প্রতি তাদের সমর্থন ব্যক্ত করেছেন। রিপাবলিকান একজন মুখপাত্র সিএনএনকে বলেছেন, এটি প্রতীকী, বাইডেন ভাসমান ভোটারদের টানতে এ কৌশল নিয়েছেন। তিনি বলেন, ৯৫% রিপাবলিকান ট্রাম্পের সাথে আছেন। একই দিন সকালে হোয়াইট হাউস উপদেষ্টা ক্যালিয়ান কনওয়ে পদত্যাগের ঘোষণা দেন। তিনি বলেছেন, পরিবারকে সময় দিতে এই পদত্যাগ। ট্রাম্পের বড়বোন ম্যারিয়ান ট্রাম্প ব্যারি’র একটি পুরানো (২০১৮-২০১৯) অডিও শনিবার প্রকাশ পেয়েছে, এতে তিনি বলেছেন, ডোনাল্ড ট্রাম্প নীতিহীন, মিথ্যুক ও নিষ্ঠূর, তাকে বিশ্বাস করা যায়না। ট্রাম্পের বড়ভাই ভাই রবার্ট ট্রাম্প মারা গেছেন। ট্রাম্প তাঁকে দেখতে হাসপাতালে গিয়েছিলেন। Pic Courtesy Bloomberg Quint.


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *